বিশেষ উদ্দেশ্যে গঠিত এবং পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত নয় এমন তহবিলে ব্যাংকের বিনিয়োগের সর্বোচ্চ সীমা বেঁধে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে একটি ব্যাংক এ ধরনের তহবিলে ২০০ কোটি টাকার বেশি বিনিয়োগ করতে পারবে না। আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংক এ বিষয়ে একটি গাইডলাইন তৈরি করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

এ ধরনের বিনিয়োগ পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগ (Exposure) হিসেবে গণ্য হবে না।

গাইডলাইন অনুসারে, স্পেশাল পারপাস ভেহিক্যাল, অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডসহ এ জাতীয় তহবিলে বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি দেওয়ার আগে সংশ্লিষ্ট ব্যাংককে তার পরিচালক পর্ষদে সিদ্ধান্ত হবে। এরপর এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন চাইতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের অফসাইট সুপারভিশন বিভাগে আবেদন জমা দিতে হবে।

আবেদনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তহবিল বা তহবিলের যাবতীয় তথ্য জমা দিতে হবে। এছাড়াও বাংলাদেশ ব্যাংকের চাহিদা অনুসারে বিভিন্ন ব্যাংকের মূলধন, তারল্য, সম্পদ ও দায়ের গুণগতমান ও পরিমাণের সর্বশেষ তথ্য দিতে হবে।

এ বিধিমালা কেবল বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) নিবন্ধিত বিশেষ উদ্দেশ্যে গঠিত তহবিলের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য হবে।

গাইডলাইনের শর্ত অনুসারে সংশ্লিষ্ট বিনিয়োগকারী ব্যাংকের সাথে সম্পর্কযুক্ত কোনো পক্ষ বা বিনিয়োগকারী ব্যাংকের কোনো শেয়ার/ডিবেঞ্চার/বন্ড বা অন্য কোন ইন্সট্রুমেন্টে বিনিয়োগ করা যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.