বেশ কিছু দিন ধরেই চীন-যুক্তরাষ্ট্র দুদেশই একে অন্যের পণ্য আমদানির ওপর নতুন করে শুল্ক বসিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার চেষ্টা করছে। একবার তা গড়াল মামলা পর্যন্ত।

চীনের পণ্যে আরেক দফা ট্যারিফ বসানোয় বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বেইজিং। খবর রয়টার্সের।

চীনের বাণিজ্যমন্ত্রী জানান, ১ সেপ্টেম্বর থেকে চীনের ৩০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্যে আরও ৫ শতাংশ বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ হারে শুল্ক কার্যকর হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।

এদিকে চীনও যুক্তরাষ্ট্র থেকে অপরিশোধিত তেল আমদানির ওপর বসিয়েছে নতুন শুল্ক।

মামলার কারণ হিসেবে চীনের মন্ত্রী জানান, গত জুনে জি-২০ সম্মেলনের সময় জাপানের ওসাকায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিংয়ের সঙ্গে এক বৈঠকে চীনা পণ্যের ওপর আর শুল্ক না বসানোর ব্যাপারে সম্মত হোয়েছেন।

নতুন শুল্কারোপের ফলে তা চরমভাবে লঙ্ঘন হয়েছে। তবে ট্যারিফ ইস্যুতে বিভিন্ন সময় বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বেইজিং।

এর মাধ্যমে দেশটি বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার প্রতি তাদের সমর্থনের বার্তা পাঠাচ্ছে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা। কারণ যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি ডব্লিউটিওর বৈরী আচরণের অভিযোগ তুলে তার দেশকে এই সংস্থা থেকে বের করে নেয়ার হুমকি প্রায়ই দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

Leave a Reply

Your email address will not be published.